ছবি
শিরোনাম
চরবংশী ইউনিয়নের হাজিমারা গ্রাম
বিস্তারিত

আমাদের গ্রামটি অনেক সুন্দর।
‘ছায়া সুনিবিড় শান্তির নীড়’ আমার জন্মভূমিকে মায়ের মতো মনে হয়। দূর বিভূঁইয়ে আমার মাকে খুব মনে পড়ে, আমার গ্রামকে খুব মনে পড়ে। শৈশবের বন্ধু, অকৃত্রিম বয়োজ্যেষ্ঠদের কথা মনে পড়ে।

আমাদের গ্রামের উত্তরে কেলাগাইছ্যা আর সিন্দুরকোটা চক। এই দুই চকের মাঝখান দিয়ে পশ্চিম থেকে পুবদিকে বয়ে গেছে দোহারের খাল, এরপর মিশে গেছে আড়িয়াল বিলে। সিন্দুরকোটা চকের উত্তরে বানাঘাটা ও নিকড়া গ্রাম। আমাদের গ্রামের পূর্বদিকে বিরাণ গাংকুলা চক, তারও পুবে গেলে আমার কৈশোরের ধাত্রীমাতা আড়িয়াল বিল। কখনো উছা, কখনো পোলো, কখনো ঠেলাজাল, কখনো টানাজাল, আবার ঝাঁকিজাল দিয়ে মাছ ধরেছি। বর্ষায় নাও ভরে গরুর জন্য কস্তুরি (কচুরিপানা) এনেছি। বোরো মৌসুমে ঘাস কেটেছি। ধাপারি খালের মুখে আমাদের বোরো জমি ছিল- ছোটোবেলায় বাবার সাথে সেই ক্ষেতে গেছি। দোহারের খাল আর ধাপারি খাল যেখানে আড়িয়াল বিলে পড়েছে, সেখানে আশ্বিন-কার্তিকে প্রচুর মাছ গাবাতো। সারাদিন সূর্যের তীব্রতাপে পিঠ পুড়িয়ে কতো মাছ ধরেছি, তার ইয়ত্তা নেই।